৩য় হিফযুল কুরআন অ্যাওয়ার্ড ও বার্ষিক পুরষ্কার বিতরণ অনুষ্ঠান ২০২৪

আসসালামু আলাইকুম। আশুলিয়া, সাভারে ইনতিসার হিফয মাদরাসা ও ইনতিসার গার্লস হিফয মাদরাসায় ৩য় হিফযুল কুরআন অ্যাওয়ার্ড, বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক পুরষ্কার বিতরণ ২০২৪ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকাল ৮টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ইনতিসার হিফয মাদরাসা সংলগ্ন মাঠে ৩য় হিফযুল কুরআন অ্যাওয়ার্ড, বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক পুরষ্কার বিতরণ ২০২৪ অনুষ্ঠিত হয়।


আশুলিয়া, সাভারে ইনতিসার ফাউন্ডেশন কর্তৃক আয়োজিত ৩য় হিফযুল কুরআন অ্যাওয়ার্ড, বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক পুরষ্কার বিতরণ ২০২৪ অনুষ্ঠানে ইনতিসার ফাউন্ডেশন পরিচালিত প্রতিষ্ঠানসমূহ অংশগ্রহণ করে।
ইনতিসার হিফয মাদরাসার শিক্ষার্থীদের মনমুগদ্ধকর কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে ৩য় হিফযুল কুরআন অ্যাওয়ার্ড, বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক পুরষ্কার বিতরণ ২০২৪ অনুষ্ঠান শুরু হয়। কুরআন তেলায়াতের পর ইসলামী সংগীত পরিবেশন করে ইনতিসার গার্লস হিফয মাদরাসার শিক্ষার্থীবৃন্দ। এসময় জাতীয় সংগীত, হামদ-নাত, সমসাময়িক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বাংলা, ইংরেজি ও আরবি বক্তব্য পরিবশেন করা হয়।
ইনতিসার গার্লস হিফয মাদরাসার পরিবেশনায় সকালটা শুরু হোক প্রভু তোমার নামে, বিকেলটা শেষ হোক তারই স্বরণে শিরোনামে ইসলামী সংগীত-

অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইনতিসার ফাউন্ডেশনের সম্মানিত চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ। স্বাগত  বক্তব্যে তিনি বলেন “খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক চর্চার মাধ্যমে আমাদের শিক্ষার্থীদের মেধা বিকাশ অর্জন সম্ভব”।
উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, ফেরদৌস ওয়াহিদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, সাভার (ঢাকা)। প্রধান আলোচক ছিলেন ড. মুফতি মুহাম্মদ আবু ইউসুফ খান, অধ্যক্ষ, তামিরুল মিল্লাত কামিল মাদরাসা, ঢাকা। এছাড়াও বক্তব্য দেন মাওলানা নুরুল হক, সিনিয়র প্রভাষক, তামিরুল মিল্লাত কামিল মাদরাসা, টঙ্গী। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইনতিসার ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফেরদৌস ওয়াহিদ
প্রধান অতিথি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফেরদৌস ওয়াহিদ

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফেরদৌস ওয়াহিদ বলেন “ধমীয় শিক্ষা ছাড়া মানুষ মানবতার শিক্ষা অর্জন করতে পারেনা। শিশুরা কাদামাটির মতো। তাদের যা শিখানো হয় তাই তারা অর্জন করে। মাদরাসা শিক্ষা অর্জন করে বিসিএস ক্যাডার, ডাক্তার, ইজ্ঞিনিয়ার হওয়া যায়”। এছাড়াও তিনি ইনতিসার গার্লস হিফয মাদরাসার একজন শিক্ষার্থীর ইংরেজী বক্তব্য শুনে বলেন- “তার ইংরজি Pronunciation better than General Students."
“ধমীয় শিক্ষা ছাড়া মানুষ মানবতার শিক্ষা অর্জন করতে পারেনা শিশুরা কাদামাটির মতো। তাদের যা শিখানো হয় তাই তারা অর্জন করে। মাদরাসা শিক্ষা অর্জন করে বিসিএস ক্যাডার, ডাক্তার, ইজ্ঞিনিয়ার হওয়া যায়

প্রধান অতিথির বক্তব্য দেখুন:


প্রধান আলোচক ড. মুফতি মুহাম্মদ আবু ইউসুফ খান তার বক্তব্যে বলেন “আমাদের নবী হযরত মুহাম্মদ (স:) আমাদের জন্য রেখে গেছেন কোরআন ও হাদীস। দ্বীনি জ্ঞান শিক্ষা করা আমাদের জন্য ফরয। তাই আমাদের উচিত আমাদের সন্তানদের মাদরাসা শিক্ষা অর্জন করা”।

প্রধান আলোচক ড. মুফতি মুহাম্মদ আবু ইউসুফ খান ডান থেকে দ্বিতীয়

“আমাদের নবী হযরত মুহাম্মদ (স:) আমাদের জন্য রেখে গেছেন কোরআন ও হাদীস। দ্বীনি জ্ঞান শিক্ষা করা আমাদের জন্য ফরয। তাই আমাদের উচিত আমাদের সন্তানদের মাদরাসা শিক্ষা অর্জন করা”
ইনতিসার ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন সিনিয়র প্রভাষক মাওলানা নুরুল হক, তামিরুল মিল্লাত কামিল মাদরাসা, টঙ্গী। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইনতিসার হিফয মাদরাসার প্রিন্সিপাল ফখরুজ্জামান তাওহীদ, ইনতিসার হিফয মাদরাসার ভাইস-প্রিন্সিপাল আল-আমিন এবং স্থানীয় ওলামায়ে কেরাম।

সিনিয়র প্রভাষক মাওলানা নুরুল হক, তামিরুল মিল্লাত কামিল মাদরাসা, টঙ্গী
সিনিয়র প্রভাষক মাওলানা নুরুল হক, তামিরুল মিল্লাত কামিল মাদরাসা, টঙ্গী

এখন আমরা বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতার বিভিন্ন ইভেন্টের ছবি ও ভিডিও তুলে ধরেবো। ছবি ও ভিডিও দেখে আপনার গুরুত্বপূর্ন মতামত ব্যক্ত করতে ভুলবেন না।

বিভিন্ন ইভেন্ট এর ভিডিও

পড়া মনে রাখার কৌশল শিরোনামে ইসলামী সংগীত পরিবেশন করে ইনতিসার গার্লস হিফয মাদরাসার শিক্ষার্থীবৃন্দ

শিক্ষার্থীদের বেলুন ফোটানো খেলার কিছু মুহুর্ত

বিভিন্ন ইভেন্ট এর ছবি

প্রধানঅতিথি ফেরদৌস ওয়াহিদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।

পাগড়ি প্রদান করা হচ্ছে

পুরস্কার গ্রহণকারী শিক্ষার্থী

ক্রেস্ট গ্রহণকারী শিক্ষার্থী

ক্রেস্ট গ্রহণকারী শিক্ষার্থী। ইনতিসার গার্লস হিফয মাদরাসা

উপস্থিত শিক্ষার্থী

ইসলামী সংগীত পরিবেশনা। ইনতিসার হিফয মাদরাসা

উল্লেখ্য গত ১০-০২-২০২৪ খ্রি: থেকে ২০-০২-২০২৪ তারিখ পর্যন্ত সপ্তাহ ব্যাপী ইনতিসার হিফয মাদরাসা ও ইনতিসার গার্লস হিফয মাদরাসায় ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সপ্তাহ পালিত হয়েছে। ইনতিসার ফাউন্ডেশন কর্তৃক আয়োজিত বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সপ্তাহে প্রায় ৫ শতাধিক শিক্ষার্থী বিভিন্ন ইভেন্টে অংশ গ্রহণ করে।
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url