> হামাসের কাছে পরাজয় শিকার ইসরাইলের- একদিনে ২৪ সেনা নিহত

হামাসের কাছে পরাজয় শিকার ইসরাইলের- একদিনে ২৪ সেনা নিহত

হামাসের কাছে পরাজয় শিকার ইসরাইলের- একদিনে ২৪ সেনা নিহত

হামাস-ইসরাইল যুদ্ধ শুরু পর থেকে এখন পর্যন্ত এক প্রকার বেকায়দায় আছে দখলদার ইসরাইল। হামাসের ৭ অক্টোবারের আল-আকসা ফ্লাড অভিযান শুরু পর থেকে শুধু মার খেয়েই যাচ্ছে তথা-কথিত পৃথিবীর শক্তিশালী জায়নবাদী সেনাবাহিনী। হামাস-ইসরাইল যুদ্ধে এখন পর্যন্ত কোন লক্ষ্যই অর্জন করতে পারিনি। হামাস হুশিয়ারি দিয়েছে ইসরাইল এযুদ্ধে কোন লক্ষ্যই অর্জন করতে পারবেনা।

জিম্মিদের খোজ দিতে লিফলেট বিলি করছে ইসরাইল

হামাস-ইসরাইল যুদ্ধ চলাকালীন দখলদার বাহিনী গত সোমবার বন্দীদের খোজ চেয়ে লিফলেট বিলি করেছে। লিফলেটে বলা হয়েছে যদি কোন বন্দীর খোজ পাওয়া যায় তাহলে ইসরাইল সেনাবাহিনীকে জানাতে। বন্দী ব্যাক্তিদের ছবি সম্বলিত লিফলেটে নাম্বার দিয়ে বলা হয়েছে জিম্মিদের কোন খোজ পাওয়া গেলে ফোন করে জানাতে হবে।

দক্ষিণ গাজার রাফা শহরের এবং খান ইউনুসে শরনার্থী শিবির এলাকায় ৬৯ জন ব্যাক্তির পরিচয় প্রকাশ করা হয়েছে। পরিচয সম্বলিত লিফলেট তাদের নাম ও ছবি দিয়ে গাজার বাসিন্দাদের আহ্বান করা হয়েছে বন্দীদের সম্পর্কে কোন তথ্য থাকলে তা যেন জানানো হয়।

লিফলেটে নম্বর দিয়ে আহ্বান করা হয়েছে কোন বন্দীকে চিনে থাকলে তা ইসরাইলকে জানাতে। ইসরাইল বলছে হামাস-ইসরাইল যুদ্ধ শুরু পর থেকে হামাসের কাছে এখনও ১৩৬ জন বন্দী রয়েছে। ইসরাইল জানায় ৭ অক্টোবর হামাসের অভিযানে ২৪০ জন নাগরিককে ইসরাইল থেকে বন্দী করা হয়েছিল।

হামাস-ইসরাইল যুদ্ধ শুরুর পর ২ দফা যুদ্ধ বিরতীতে ৭ দিনে ১২১ জন ইসরাইলিকে মুক্তি দেওয়া হয়েছিল। ১২১ জন বন্দীর মুক্তির বিনিমেয়ে ইসরাইল ২৪০ জন ফিলিস্তিনি নাগরিককে মুক্তি দিয়েছিল। ইসরাইল জানায় যুদ্ধে ৩৩ বন্দী মারা গেছে এখনও হাসাসের কাছে ১৩৬ জন ইসরাইলি নাগরিক জিম্মি রয়েছে।

গত সপ্তাহে তিন জিম্মির ভিডিও প্রকাশ করে হামাস। ভিডিওতে জিম্মিরা গাজা শাসনকারী হামাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ বন্ধ করে তাদের মুক্তি ব্যবস্থা করা জন্য ইসরাইল কর্তৃপক্ষের কাছে অনুরোধ জানাই তারা।

এদিকে কিছু জিম্মির পরিবার হামাসের সাথে আরেকটি যুদ্ধ বিরতী বা যুদ্ধ বন্ধের জন্য অনুরোধ জানিয়েছে তারা। কিন্তু নেতানিয়াহু হামাসকে ধ্বংস না করা পর্যন্ত যু্দ্ধ চালিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছে। আর যুদ্ধ করেই জিম্মিদের মুক্ত করতে পারবেন বলে মন্তব্য করেছে নেতানিয়াহু।

ইসরাইলি প্রশাসনিক কর্তারা একথা মানতে বাধ্য যে, শুধু একটি যুদ্ধ বিরতী পারে জিম্মিদের মুক্ত করতে। ইসরাইল সেনাবহিনীর একজন চীফ অব স্টাফ মন্তব্য করেন, একটি স্থায়ী যুদ্ধ বিরতী পারে জিম্মিদের জীবিত ফিরিয়ে আনতে।

যুদ্ধ বিরতী চায় ইসরাইল

হামাস-ইসরাইল যুদ্ধে এক প্রকার বেকায়দায় পড়ে যুদ্ধ বিরতীর প্রস্তাব দিল ইসরাইল। হামাসের হাতে মার খেয়েই এমন সিদ্ধান্ত। দুই মাসের যুদ্ধ বিরতীর প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে ইসরাইলের মন্ত্রী সভা। হামাসের হাতে সব বন্দীর বিনিময়ে ২ মাসের ‍যুদ্ধ বিরতী কার্যকর হবে বলে জানিয়েছে ইসরাইল। তবে সাফ জানিয়েছে ইসরাইল করাগারে বন্দী ৬০০০ জিম্মির সাবাইকেই মুক্তি দিবে না নেতানিয়াহু প্রশাসন।

মঙ্গলবার দক্ষিণ গাজায় হামাসের প্রতিরোধ হামলায় ইসরাইলের ২৪ সেনা নিহত হয়েছে। ইসরাইল জানায় দক্ষিণ গাজায় একটি সেনা বহরের উপর আরপিজি হামলা চালায় হামাস এবং একটি ভবনে বিস্ফোরণ ঘটায় এতে ভবনের নিচে চাপা পড়ে এ হতাহতের ঘটানা ঘটে। হামাসের শক্ত প্রতিরোধের মুখে পড়ে এ প্রকার বাধ্য হয়েই ‍যুদ্ধ বিরতী চায় ইসরাইল।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.